এশিয়া

ইসরাইলের বিমান হামলায় নিহত ৮ ফিলিস্তিনি যোদ্ধা

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার দক্ষিণাঞ্চলে ইসরাইলের বিমান হামলায় দুই কমান্ডারসহ অন্তত আটজন ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী যোদ্ধা নিহত হয়েছেন। এ হামলার ঘটনায় এখনও বেশ কয়েকজন নিখোঁজ থাকায় নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

জানা যায়, সোমবার ইসরাইলি বিমান হামলায় গাজার দক্ষিণাঞ্চলের একটি সুড়ঙ্গপথ ধ্বংস করে দিলে এই প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, নিহতদের মধ্যে পাঁচজনকে ইসলামিক জিহাদের সামরিক শাখা আল কুদসম ব্রিগেডের সদস্য বলে আনুষ্ঠানিকভাবে শনাক্ত করেছেন তারা।

আল কুদসম ব্রিগেডের নিহত পাঁচজন হলেন, ব্রিগেড কমান্ডার আরাফাত আবু মোর্শেদ, উপ-ব্রিগেড কমান্ডার আবু হাসনাইন, আহমাদ খলিল আবু আরমানেহ, ওমর নসর আল ফালিত ও জিহাদ আল সামিরি।

এ ছাড়া মেসবাহ ফায়িক শুবাইর (৩০) ও মোহাম্মদ আল আগা (২২)। তারা দুজন হামাসের ইজ্জেদিন আল কাসসাম ব্রিগেডের সদস্য। এ ছাড়া আরও একজনের পরিচয় এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল-কিদরা বলেন, খান ইউনিস এলাকায় আরেক হামলায় আরও নয়জন আহত হয়েছেন। তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য আল-আকসা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

‘নিশ্চিতভাবেই আমরা দখলদার ইসরাইলের আজকের হামলার দাঁতভাঙা জবাব দিবেন বলে হুঁশিয়ারী দিয়ে সোমবার রাতে এক বিবৃতি দিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন ইসলামিক জিহাদ মুভমেন্ট।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, দখলদার সরকারকে অবশ্যই হুঁশিয়ার থাকতে হবে যে ফিলিস্তিনি জনগণকে রক্ষায় আমরা নিজেদের সামর্থ বাড়ানোর কাজ অব্যাহত রাখব।

এদিকে গাজা শাসনকারী ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস এ হামলার নিন্দা জানিয়েছে। টুইটারে দেয়া এক বিবৃতিতে হামাস দাবি করে, এ হামলার মাধ্যমে ইসরাইল গাজার জনগণের বিরুদ্ধে নতুন করে যুদ্ধ শুরু করেছে।

ফিলিস্তিনি সংবাদ সংস্থা ওয়াফা জানিয়েছে, ইসরাইলি বিমান হামলায় ধ্বংস হয়ে যাওয়া খান ইউনিসের পূর্ব দিকের সুড়ঙ্গপথটি নির্মাণ করছিল হামাস। সংবাদ সংস্থাটি জানিয়েছে, সুড়ঙ্গটির ওপর পাঁচটি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে ইসরাইলি বিমান বাহিনী।

গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা চালানোর পর ইহুদিবাদী ইসরাইলের সামরিক কর্মকর্তারা সীমান্তে নিজেদের নিরাপত্তা জোরদার করেছে।

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সাল থেকে গাজাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে ইসরাইল। ফলে খাদ্য-ওষুধসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের অভাবে ব্যাপক দুর্দশার শিকার হচ্ছে ফিলিস্তিনি জনগণ। এ অবস্থায় গাজার মানুষদের ন্যূনতম জীবন ধারণের জন্য চোরাই পথে পণ্য সরবরাহ করতে মাটি খুঁড়ে বিভিন্ন সুড়ঙ্গপথ তৈরি করে নিয়েছে হামাস ও ইসলামি জিহাদ।

ইসরাইলি ও মিসরীয় নিরাপত্তা বাহিনী তাদের নির্মিত সুড়ঙ্গপথগুলোও একে একে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে। ফলে গাজার জনগণের অবস্থা দিন দিন করুণ দশায় পর্যবসিত হচ্ছে।

-বিদেশ ডেস্ক

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

সম্পাদক:

বিপুল রায়হান

১৩/২ তাজমহল রোড, ব্লক-সি, মোহাম্মদপুর,ঢাকা-১২০৭, ফোন : 01794725018, 01847000444 ই-মেইল : info@jibonthekenea.com অথবা submissions@jibonthekenea.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত জীবন থেকে নেয়া ২০১৬ | © Copyright Jibon Theke Nea 2016

To Top