জাতীয়

চামড়া শিল্প নগরীর বর্জ্যে বন্দি ২০০ পরিবার

ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে সাভারের ঝাউচর গ্রামের কৃষি জমি। পরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা চামড়া শিল্প নগরীই কৃষি নির্ভর এই গ্রামের জন্য হুমকি হয়ে উঠেছে।

ঝাউচর গ্রামটি সাভারের হেমায়েতপুর এলাকায়। কৃষি নির্ভর এই গ্রাম থেকেই রাজধানীবাসীর জন্য সবজির জোগান দেওয়া হতো। কিছুদিন আগেও সেখানে বছর জুড়েই নানা পদের সবজির চাষাবাদ হয়েছে। কিন্তু এখন ক্রমেই এই গ্রাম থেকে কৃষি জমি হারিয়ে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে বসত বাড়িতে প্রবেশ করছে বিষাক্ত বর্জ্য।

বিসিক চামড়া শিল্প নগরী প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এই গ্রামটির পাশেই । পরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা এই বিশেষ শিল্পাঞ্চলটি এখন পরিবেশের জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। শিল্প নগরীর দূষিত বর্জ্যে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ঝাউচর গ্রামের ২০০ পরিবার।

বিসিক চামড়া শিল্প নগরীতে বর্তমানে উৎপাদনে রয়েছে শতাধিক ট্যানারি কারখানা। উৎপাদনে থাকা কারখানাগুলোর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় এখন পর্যন্ত কোনো সফলতা দেখাতে পারেনি বিসিক। অথচ সমগ্র ট্যানারি শিল্পকে পরিবেশের উপযোগী করার লক্ষেই হাজারীবাগ থেকে সাভারে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ঝাউচর গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি সড়কে কারখানার দূষিত পানি। বাড়ির উঠান ছাপিয়ে এই পানি ঢুকে পড়ছে বসত ঘরে। ঘন কালো এই পানি কেমিক্যাল মিশ্রিত হওয়ায় ডেকে আনছে ভয়াবহ অসুখ-বিসুখ।

ঝাউচর গ্রামের বসিন্দা সিরাজুল ইসলাম সেরন বলেন, ‘চামড়া শিল্প নগরী প্রতিষ্ঠিত হলে এলাকার উন্নয়ন হবে বলে অনেক কথা শুনেছি। কিন্তু এখন আমাদের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে এই কারখানা। গ্রামের সব পরিবার এখন পানিবন্দি।’

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম বলেন, ‘শিল্প নগরীর ড্রেনেজগুলো জ্যাম হয়ে গেছে। পানি ড্রেনেজ থেকে উপচে গ্রামে ঢুকে পড়ছে। ড্রেনেজ দিয়ে পানি প্রবাহিত না হওয়ায় শিল্প নগরীর অর্ধেক বর্জ্য গ্রামে ঢুকে পড়ছে।’

এ বিষয়ে সাভার উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফখরুল আলম সমর বলেন, ‘ঝাউচর গ্রামের ২০০ পরিবার ট্যানারির বর্জ্যে বন্দি জীবন যাপন করছে। পাশাপাশি তাদের ফসলি জমিও উৎপাদন ক্ষমতা হারাচ্ছে। সরকারের উচিৎ এই পরিবারগুলোর দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া।’

এ বিষয়ে বিসিক চামড়া শিল্প নগরীর প্রকল্প পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রকল্পের একজন প্রকৌশলী জানান, ‘কারখানাগুলো ড্রেনের ভিতর চামড়ার অংশ ফেলে দেওয়ায় ড্রেনগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। এজন্য ড্রেন উপচে গ্রামে পানি ঢুকছে।’

-সাভার প্রতিনিধি

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

সম্পাদক:

বিপুল রায়হান

১৩/২ তাজমহল রোড, ব্লক-সি, মোহাম্মদপুর,ঢাকা-১২০৭, ফোন : 01794725018, 01847000444 ই-মেইল : info@jibonthekenea.com অথবা submissions@jibonthekenea.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত জীবন থেকে নেয়া ২০১৬ | © Copyright Jibon Theke Nea 2016

To Top