বিদেশ

ট্রাম্পের অপ্রত্যাশিত জয়

সকল রাজনৈতিক হিসাব-নিকাশকে পাল্টে দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫ তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হলেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবার জন্য যেখানে ইলেকটোরাল কলেজের ৫৩৮টি ভোটের মধ্যে ২৭০টি ভোট পেলেই চলে, সেখানে ট্রাম্প জিতে নিয়েছেন ২৯০ ভোট। আর ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী হিলারী ক্লিনটন পেয়েছেন ২১৮টি ভোট। এক অর্থে তাই এই নির্বাচনে ট্রাম্পের বিজয়কে নিরঙ্কুশই বলা চলে। ২০১৪ সনে আনুষ্ঠানিকভাবে রিপাবলিকান পার্টিতে যোগ দেওয়া এই মার্কিন ধনকুবের দলের সবচেয়ে বড় দাতা ও তহবিল সংগ্রাহকে পরিণত হন।
কেবল ওয়াইট হাউস নয়, এবারের নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্টের দুই কক্ষেরই নিয়ন্ত্রণ পেতে চলেছে রিপাবলিকান পার্টি। নিম্নকক্ষ হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভ আগেই নিয়ন্ত্রণে ছিল, নতুন করে উচ্চকক্ষ সিনেটও তাদের দখলে যাচ্ছে।
ট্রাম্পের এই অভূতপূর্ব বিজয়ের প্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিকভাবে বিশ্ব অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া চলছে। আমেরিকার ডলার আর মেক্সিকোর পেসোর দাম কমে গেছে, দরপতন হয়েছে আন্তর্জাতিক শেয়ার বাজারেও। এদিকে ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারনায় অভিবাসনবিরোধী, বিশেষ করে তার মুসলমানবিরোধী অবস্থান, পার্শ্ববর্তী দেশ মেক্সিকোর বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান, সিরিয়ার মাটিতে কয়েক হাজার স্থল সৈন্য পাঠানোর প্রস্তাব, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় সই হওয়া প্যারিস চুক্তি ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক চুক্তিতে নতুন করে আলোচনা শুরুর প্রস্তাব, বাসি হয়ে যাওয়া বহুল আলোচিত নর্থ আমেরিকা ফ্রি ট্রেড এগ্রিমেন্ট (নাফটা) চুক্তি নিয়ে নতুন করে দর কষাকষির অঙ্গীকার, নারী বিষয়ে তার বিতর্কিত সব উক্তি- এসবকিছুই ট্রাম্পের নির্বাচন জয়ের বিপক্ষে কাজ করবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেছিলেন। কিন্তু মার্কিন জনগনের ভাবনা ছিল উল্টো।
ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারীর এই নির্বাচনী ভরাডুবির পেছনের কারণগুলো বিশ্লেষনে আরও কিছুদিন লাগবে বলে ধারনা করা হচ্ছে। তবে দক্ষিণ এশীয় তথা বাংলাদেশের স্বার্থের প্রেক্ষাপটের দিক থেকে দেখলে ট্রাম্পের এই বিজয়ে খুব বড় কোন পরিবর্তন আসবে না বলে ধারনা করা যায়। বাংলাদেশের পোশাকখাতে জিএসপি সুবিধা পুনরায় ফিরে পাওয়া, যুক্তরাষ্ট্রের সাথে বাংলাদেশের এখনকার বাণিজ্যিক সম্পর্কের পরিধি, দক্ষিণ এশিয়া তথা ভারতের সাথে তাদের সম্পর্কে বাংলাদেশের উপর প্রভাব- এসবকিছুর জন্য আমাদের আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। তবে হিলারী ক্লিনটনের পরাজয়ের মধ্য দিয়ে আরও একটা বিষয় উঠে এলো, মার্কিন জনগন তাদের দেশে সর্বোচ্চ নারী নেতৃত্বের ব্যাপারে হয়তো এখনও রক্ষণশীল।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

সম্পাদক:

বিপুল রায়হান

১৩/২ তাজমহল রোড, ব্লক-সি, মোহাম্মদপুর,ঢাকা-১২০৭, ফোন : 01794725018, 01847000444 ই-মেইল : info@jibonthekenea.com অথবা submissions@jibonthekenea.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত জীবন থেকে নেয়া ২০১৬ | © Copyright Jibon Theke Nea 2016

To Top