মতামত

দেশজুড়ে বন্যার ভয়াবহতা

প্রতিবছর বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে বাংলাদেশে যে পরিমান আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি হয়, তার মধ্যে বন্যার ক্ষতিই সবচেয়ে বেশী। উত্তরোত্তর এই ক্ষতির পরিমাণ বেড়েই চলেছে। এর মধ্যে এ বছরও বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। উত্তারাঞ্চলে কোথাও কোথাও পানি কিছুটা কমলেও বহু মানুষ এখনো পানিবন্দী। নদীগুলো বিপদসীমার অনেক ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। মধ্যাঞ্চলের বহু এলাকা নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। সারাদেশে প্রায় ২০লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। এ পর্যন্ত পানিতে ডুবে মারা গেছে ২১ জন।
এর মধ্যেই বন্যাকবলিত এলাকায় খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির অভাব তীব্র হয়ে উঠেছে। চাহিদার তুলনায় ত্রান সাহায্যও অপ্রতুল। অনেকেরই রান্না করার মত অবস্থা নেই। সাহায্য হিসেবে চাল-ডাল দিলেও তা তারা খেতে পারবেন না। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী সবাইকে বন্যার্তদের সাহাযার্থে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। এই মুহুর্তে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি সবচেয়ে জরুরি। সরকারি ও বেসরকারি ত্রান তৎপরতা সমান তালে এগিয়ে না এলে দুর্গতদের রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়বে। পাশাপাশি পানি কমার সঙ্গে সঙ্গেই পানিবাহিত বিভিন্ন রোগ মহামারী আকারে দেখা দিতে পারে। তা প্রতিরোধে এখন থেকেই সচেষ্ট হওয়া প্রয়োজন।
এ দেশে বছর বন্যা হওয়ার প্রধান কারন নদীগুলো ভরাট হয়ে যাওয়া এবং উজান থেকে নেমে আসা পানি নদী দিয়ে প্রবাহিত হতে না পেরে আশেপাশের সমতল ভূমি দিয়ে প্রবাহিত হওয়া। নদী খননের মাধ্যমে নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে না পারলে এই ক্ষতি ক্রমেই বাড়তে থাকবে। জানা গেছে, ব্রিটিশ ভারতেও নদী খননের জন্যে কয়েকশ ড্রেজারের এক বিশাল বহর ছিল। সেগুলোর সাহায্যে খননের মাধ্যমে নদীগুলোকেই নাব্য রাখা হতো। আমাদের দুর্ভাগ্য তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তান ছিল ড্রেজারহীন এবং নদীগুলো খননের আওতায় আসেনি। বঙ্গবন্ধুর সরকার চারটি ড্রেজার কিনেছিলো। মেয়াদোত্তীর্ণ সেই ড্রেজারগুলোই এখনো আমাদের প্রধান সম্বল। দীর্ঘ সময় আর কোন ড্রেজার কেনা হয় নি। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকার এসে আবার দেড় ডজনের মত ড্রেজার কেনার উদ্যোগ নেয়। সেগুলো সব এখনো এসে পৌছেনি।
নদী রক্ষা বা নদী খনন ছাড়া দেশ রক্ষা করা যাবে না। সব উন্নয়ন মুখ থুবড়ে পড়বে। তাই কঠিন হলেও অস্তিত্ব রক্ষার এই কাজটি এগিয়ে নিতে হবে। তার আগে বন্যাদুর্গতদের আশু ভোগান্তি দূর কারার জরুরি উদ্যেগ নিতে হবে

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

সম্পাদক:

বিপুল রায়হান

১৩/২ তাজমহল রোড, ব্লক-সি, মোহাম্মদপুর,ঢাকা-১২০৭, ফোন : 01794725018, 01847000444 ই-মেইল : info@jibonthekenea.com অথবা submissions@jibonthekenea.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত জীবন থেকে নেয়া ২০১৬ | © Copyright Jibon Theke Nea 2016

To Top